সংকট নিরসনে মুসলিমদের সংলাপ চায় তুরস্ক

দুঃখজনক বাস্তবতা ও বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর জাতীয় সংকটগুলো নিরসনে পারস্পরিক সংলাপের প্রতি জোর দিয়েছে তুরস্ক। মঙ্গলবার ‘দ্য অর্গানাইজেশন অব ইসলামিক কো-অপারেশন’ (ওআইসি)-এর এক ভার্চুয়াল সভায় যোগ দিয়ে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান এ কথা বলেন। তুরস্কের ধর্মমন্ত্রণালয় কর্তৃক আয়োজিত ওআইসির এই সভায় ওআইসির সদস্য দেশগুলোর মন্ত্রী, কর্মকর্তা ও ইসলামিক স্কলাররা অংশ নেন।

এরদোয়ান আরো বলেন, ‘মুসলিম হিসেবে আরো ঘনিষ্ঠ হয়ে নিজেদের মধ্যে আলোচনার পথ তৈরি করতে হবে। পরস্পরকে জানতে হবে এবং আমাদের বর্তমান এই নাজুক ও চ্যালেঞ্জিং সময়ে পারস্পরিক পরামর্শ আদান-প্রদান খুবই জরুরি।’ ইসলামবিরোধী নেতাদের সমালোচনা করে এরদোয়ান বলেন, মুসলমানের শত্রুরা নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে ইসলামের বিরুদ্ধে বক্তব্য প্রদানকেই বড় হাতিয়ার হিসেবে গ্রহণ করেছে। ইসলামের উত্থান নিয়ে যারা বিচলিত তারা আমাদের সংকটে আক্রমণ করে, অথচ ওই সংকটের কারণ তারাই।

তিনি বলেন, ‘আমরা এখন অভ্যন্তরীণ বহু সমস্যার মোকাবেলা করছি—সন্ত্রাসবাদ, ক্ষুধা, অশিক্ষা, দারিদ্র্য এবং অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণেই ইয়েমেন, সিরিয়া, আফগানিস্তান ও লিবিয়ার মতো একাধিক মুসলিম দেশে রক্তপাত হচ্ছে।’ আফসোস করে এরদোগান বলেন, একসময় যেসব ভূখণ্ড থেকে জ্ঞান-বিজ্ঞানের আলো বিতরণ করা হতো, শত শত বছর মানব সমাজে শান্তি ও প্রজ্ঞার পাঠ শেখানো হতো সেসব ভূখণ্ডে আজ প্রায় প্রতিদিনই মানববিধ্বংসী বোমা বিস্ফোরিত হয়।

সূত্র : ইয়েনি শাফাক/ কালের কণ্ঠ।