মৃত্যু নিয়ে সব সময়ই ভাবা উচিত, আল্লাহর নির্দেশনা মেনেই জীবনকে এগিয়ে নিতে হবে : পপি

করোনা আক্রান্ত থেকে সুস্থ হয়েছেন নায়িকা পপি। এখন কেমন আছেন?

মহান আল্লাহর রহমতে এখন বেশ ভালো আছি। শুটিং করছি ও অন্যান্য স্বাভাবিক সব কাজকর্ম করে যাচ্ছি। তবে সুস্থ হওয়ার পর বেশ কিছুদিন শারীরিক দুর্বলতা অনুভব করেছিলাম। সেই সমস্যাগুলো এখন আর নেই।

করোনামুক্ত হওয়ার পর আপনার মন-মানসিকতায় কি কোনো পরিবর্তন এসেছে?

কিছুটা তো এসেছেই। আমরা ছোট ছোট বিষয় নিয়ে একে-অন্যের সঙ্গে রেষারেষিতে লিপ্ত হই। ভোগবিলাস নিয়ে মেতে থাকি। মৃত্যু নিয়ে সেভাবে ভাবি না বললেই চলে। অথচ মৃত্যু যে কোনো সময় চলে আসতে পারে। ক্ষণিকের এ পৃথিবীতে কার আয়ু কত দিনের- তা আমরা আগে থেকে কেউ-ই জানি না। তাই মৃত্যু নিয়ে সব সময়ই ভাবা উচিত। আল্লাহর নির্দেশনা মেনেই জীবনকে এগিয়ে নিতে হবে।

একটি নতুন ছবি দিয়ে অভিনয় শুরু করেছেন কিছুদিন আগে। সেটিতে কাজ করার অভিজ্ঞতা কেমন?

প্রত্যাশা অনুযায়ীই কাজ করেছি। ছবিটির গল্পের পাশাপাশি আমার চরিত্রটিও বেশ সুন্দর। আমি এখানে একজন চিকিৎসকের চরিত্রে অভিনয় করছি। এখনও ছবিটির কাজ শেষ হয়নি। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের প্রযোজনায় রাজু আলীম ও মাসুমা তানি যৌথভাবে ছবিটি পরিচালনা করছেন। বেশ ভালোই হচ্ছে কাজটি। শুনেছি, দ্রুতই ছবিটির কাজ শেষে প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে।

আপনার হাতে তো আরও কিছু ছবির কাজ আছে। সেগুলোর অগ্রগতি কী?

আমি তো একজন অভিনয়শিল্পী; তাই পরিচালক যখন ছবির শুটিং শুরু করবেন, তখনই আমার সঙ্গে তাদের যোগাযোগ হয়। পাঁচটি ছবির কাজ অসমাপ্ত আছে। এগুলোর শুটিংয়ের বিষয়ে পরিচালকরা কেউই এখনও যোগাযোগ করেননি।

একবার ছবি প্রযোজনার ঘোষণা দিয়েছিলেন। কিন্তু তা নিয়ে আর কোন খবর নেই কেন?

পরিচালকের অসততার জন্যই ছবিটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়নি। শুটিংয়ের আগেই একুশ লাখ টাকা খরচ করেছিলেন, যেটি আর ফেরত পাইনি। তবে ছবি প্রযোজনার ইচ্ছা এখনও আছে। সুবিধাজনক যে কোন সময় এর ঘোষণা দেব।

অভিনয় ক্যারিয়ারের দু’যুগ পূর্ণ করতে যাচ্ছেন শিগগিরই। দীর্ঘ পথচলার এ সময়টি নিয়ে আপনার অনুভূতি কী?

শুরু থেকেই ভালো কাজ নিয়ে দর্শকের সামনে আসার যে প্রতিজ্ঞা করেছিলাম, সে বিষয়টি এখনও আছে আমার মধ্যে। দর্শকের কাছ থেকে যে ভালোবাসা পেয়ে এসেছি, তার মূল্য আমার কাছে অনেক। এছাড়া প্রযোজক-পরিচালক ও সহশিল্পীরাও আমার এ চলার পথে সহযোগিতা করেছেন। তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।