আবারো ক্রিস গেলের বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে কলকাতাকে 8 উইকেটে হারালো কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এ কলকাতা নাইট রাইডার্সকে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলে চতুর্থ স্থানে উঠে গেল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। একাদশে সুযোগ পেয়ে পুরো দলটাকে পাল্টে দিয়েছেন ক্রিস গেইল। টুর্নামেন্টের শুরুতে হারতে থাকা কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব একপ্রকার দিশেহারা হয়ে গিয়েছিল।

তবে যেদিন থেকে একাদশে ক্রিস গেইল সুযোগ পেয়েছেন তার পর থেকে জয়ের ধারায় রয়েছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। আজও জয়ে অবদান রেখেছেন ক্রিস গেইল। কলকাতা নাইট রাইডার্সের দেওয়া ১৫০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের বন্দরে পৌঁছে গিয়েছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব।

উদ্বোধনী জুটিতে অধিনায়ক কে এল রাহুল এবং মান্দেব সিং যোগ করেন ৪৭ রান। ২৫ বলে ২৮ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন অধিনায়ক কে এল রাহুল।

তবে এর পর মানদ্বীপ সিংকে সাথে নিয়ে তান্ডব চালান ক্রিস গেইল। মাত্র ২৫ বলে পাঁচটি ছক্কা এবং দুটি চার হাঁকিয়ে হাফ সেঞ্চুরি করেন ক্রিস গেইল। ২৯ বলে ৫১ রান করে ক্রিস গেইল যখন আউট হন তখন ম্যাচ পাঞ্জাবের দখলে। মন্দীপ সিং ৫৬ বলে শেষ ৬৬ রান করে অপরাজিত থাকেন।

এর আগেটস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই চাপে পড়ে কলকাতা। ১০ রানের মধ্যে তারা হারিয়ে বসে ৩ উইকেট। ইনিংসের দ্বিতীয় বলেই গ্লেন ম্যাক্সওয়েলকে সুইপ করতে গিয়ে শর্ট ফাইন লেগে গেইলের ক্যাচ হন নীতিশ রানা (০)।

পরের ওভারে জোড়া উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ শামি। রাহুল ত্রিপাথি (৭) আর দিনেশ কার্তিক (০) দুজনকেই উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানান এই পেসার। সেখান থেকে চতুর্থ উইকেটে মরগ্যান আর গিল ৪৮ বলে ৮১ রানের ঝড়ো জুটিতে দলকে বড় বিপদ থেকে উদ্ধার করেন।

দশম ওভারে এসে এই জুটিটি ভাঙেন লেগস্পিনার রবি বিষ্ণু। ২৫ বলে ৫ বাউন্ডারি আর ২ ছক্কায় ৪০ রান করে সাজঘরের পথ ধরেন মরগ্যান। এরপরই ফের বিপদ শুরু হয় কলকাতার।

মরগ্যান ফেরার পরের ওভারে সুনিল নারিনকে (৬) বোল্ড করেন ক্রিস জর্ডান। একটা পর্যায়ে ১১৪ রানে ৭ উইকেট হারায় কলকাতা। তবে এরই মধ্যে একটা প্রান্ত ধরে দলকে টেনে নেয়ার চেষ্টাটা চালিয়ে গেছেন ওপেনিংয়ে নামা গিল।

দলীয় ইনিংসের ৯ বল বাকি থাকতে শামিকে মারতে গিয়ে অবশেষে বাউন্ডারির কাছে নিকোলাস পুরানের ক্যাচ হন গিল। ৪৫ বলে গড়া তার ৫৭ রানের ইনিংসটি ছিল ৪টি চারের সঙ্গে ৫টি ছক্কায় সাজানো।

শেষদিকে লুকি ফার্গুসন দলের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি রান যোগ করে দিয়েছেন ঝড়ো গতিতে। ১৩ বলে ৪ বাউন্ডারি আর ১ ছক্কায় ২৪ রানে অপরাজিত থাকেন লোয়ার অর্ডারের এই ব্যাটসম্যান। পাঞ্জাবের বোলারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল শামি। ৪ ওভারে ৩৬ রান খরচায় ৩টি উইকেট নেন ডানহাতি এই পেসার। ২টি করে উইকেট নেন রবি বিষ্ণু আর ক্রিস জর্ডান।