ভূমিকম্পের ১৮ ঘণ্টা পর মাসহ তিন শিশুকে জীবিত উদ্ধার

শুক্রবারের ভয়ঙ্কর ভূমিকম্পের আঘাতে বিপর্যস্ত তুরস্ক। সাত মাত্রার ভূমিকম্পের আঘাতে তুরস্কে ২৬ জন ও গ্রিসের এক দ্বীপে দু’জন মারা গেছেন। তবে আশার খবর হচ্ছে, ভূমিকম্পের ফলে ভেঙে যাওয়া এক বিল্ডিংয়ের নিচে ১৮ ঘণ্টা আটকা থাকার পর শনিবার মাসহ তিন শিশুকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এই তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মেয়র টুনক সোয়ার টেলিভিশন চ্যানেল ফক্স টিভিকে বলেছেন, উদ্ধারকারী দলগুলির পরিশ্রমী কাজের ফলস্বরূপ ঘটে যাওয়া অলৌকিক ঘটনা শুনে আমরা আনন্দিত।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, ভূমিকম্পে ভবন ধসে পড়ার পর ধ্বংসস্তূপের নিচে ১৮ ঘণ্টা আটকা পড়েছিলেন মা ও তার তিন শিশু। তাদের জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। আরো এক শিশুকে উদ্ধারে চেষ্টা চালাচ্ছেন উদ্ধারকর্মীরা। শুক্রবারের ওই ভূমিকম্পে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ২৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

ভয়াবহ এই ভূমিকম্পের ঘটনায় অন্তত চার শতাধিক মানুষ আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম আল জাজিরা। অন্তত ২০টি ভবন ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। এখনো একশ ৮০ জন মানুষ ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়ে আছেন।

মার্কিন ভূতাত্ত্বিক জরিপ সংস্থা জানিয়েছে, ৭ মাত্রার ভূমিকম্পের কেন্দ্রস্থল তুরস্কের ইজমির প্রদেশে। তুরস্ক জানিয়েছে, ভূমিকম্পনের মাত্রা ছিল ৬ দশমিক ৬। ভূমিকম্পের কারণে গ্রিসের সামোস বন্দর এবং তুরস্কের ইজমিরে বন্যা দেখা দিয়েছে।

সূত্র: রয়টার্স, কালের কণ্ঠ অনলাইন।