ফ্রান্সে সন্ত্রাসী হামলায় আবুধাবি যুবরাজের নিন্দা

ফ্রান্সে সংঘটিত সর্বশেষ যাজক হত্যার নিন্দা জানিয়ে নিহতের পরিবার ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি গভীর সবেদনা জ্ঞাপন করেছেন সংযুক্ত আরব আমিরাতের আবুধাবি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন জায়েদ।

গতকাল রবিবার (১ নভেম্বর) ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে এক ফোনালাপ কালে হামলার নিন্দা জানান আবুধাবির যুবরাজ মুহাম্মদ। আরব আমিরাতের রাষ্ট্রয়াত্ত বার্তা সংস্থা ডব্লিওএএম- এ খবর নিশ্চিত করে।

বার্তা সংস্থায় প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ‘জাতি-গোষ্ঠীর মধ্যে সম্পর্ক বিনষ্ট করে এমন ঘৃণ্য কথা প্রত্যাখ্যানের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন যুবরাজ। তা অগণিত মানুষের অনুভূতিকে আঘাত করে এবং চরমপন্থীদের সহায়তা করে।’

যুবরাজ মুহাম্মদ জানান যে তিনি ‘যেকোনো ধরনের অপরাধ, সহিংসতা ও চরমপন্থা প্রত্যাখ্যান করেন। এই ধরনের সহিংস নৃশংসতা ধর্মের শিক্ষা এবং নীতিগুলির সঙ্গে অসামঞ্জস্যপূর্ণ, শান্তি, সহনশীলতা এবং ভালোবাসার আহ্বান করে।’

সর্বশেষ হামলায় ফরাসি প্রেসিডেন্ট ও নিহতের পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেন তিনি। তিনি বলেন যে এ ধরনের সহিংসতা মুহাম্মদের শিক্ষার প্রতিনিধিত্ব করে না।

তিনি বলেন, ‘মহানবী মুহাম্মদ (সা.)-এর অবমাননা বিশ্বের অগণিত মুসলিমদের কাছে সর্বাধিক সম্মানিত ব্যক্তি। তবে তা নিয়ে সহিংসতা ও রাজনীতি করা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়।

এছাড়া যুবরাজ মুহাম্মাদ ফ্রান্স ও আরব বিশ্বের মধ্যে আন্ত-ধর্মীয় সম্প্রীতিবোধের প্রশংসা করে পারষ্পরিক শ্রদ্ধাবোধ বৃদ্ধি ও সাংস্কৃতিক যোগাযোগ তৈরির প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

উল্লেখ্য, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা শেখানোর জেরে প্যারিসের একজন শিক্ষককে হত্যা করা হয়। গত ২৯ অক্টোবর নিস শহরের গির্জায় হামলা চালিয়ে তিনজনকে হত্যা করা হয়। এরপর গতকাল ফ্রান্সের লিঁও শহরেও একজন গ্রিক অর্থোডক্স যাজককে গুলি করা হয়।

সূত্র : গালফ নিউজ, কালের কণ্ঠ অনলাইন।