কেন তাঁর দাম ১৫.৫ কোটি টাকা, মরণবাঁচন ম্যাচে প্রমাণ করলেন প্যাট কামিন্স

২০১৯ সালের শেষের দিকে যখন কলকাতার বুকে বসেছিল আইপিএলের নিলামের আসর, তখন অস্ট্রেলিয়ার স্পিডস্টার প্যাট কামিন্সকে দলে পেতে অল আউট ঝাঁপিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। ইডেনের পেস সহায়ক উইকেটের কথা মাথায় রেখে প্যাট কামিন্সকে পেতে মরিয়া মরণ কামড় দেয় তারা। আইপিএলের নিলামে সবচেয়ে বেশি পয়সা খরচ করে তাকে দলে নেয় কেকেআর। ১৫.৫ কোটিতে তাঁকে কেনেন নাইটরা।

আইপিএল ২০২০ করোনার কারণে আর দেশের মাটিতে আয়োজন সম্ভব হয়নি। আরব দেশের স্লো-লো উইকেটে বেশ নির্বিষ দেখাচ্ছিল কামিন্সের বোলিং। ভালো বোলিং করলেও তেমন উইকেট আসছিল না। ব্যাকফায়ার করে যায় কেকেআর ম্যানেজমেন্টের এই সিদ্ধান্ত। ম্যাচের পর ম্যাচ ধরে উইকেট শূন্য থাকেন কামিন্স। কয়েকটি ম্যাচে প্রচুর রানও দেন।

তবে কেকেআরের কাছে যে ম্যাচ মরণবাঁচন ছিল, সেই রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ম্যাচে কার্যত জ্বলে উঠলেন তিনি। এই ম্যাচে একেবারে সঠিক সময়ে ‘পয়সা উসুল’ পারফরম্যান্স দিলেন তিনি। ১৯২ রান তাড়া করতে নামা রাজস্থান রয়্যালসের ব্যাটসম্যানরা তাঁর বিরুদ্ধে ব্যাট করতে নেমে যেন সর্ষে ফুল দেখলেন চোখে। ছোটো ছোটো সুইংয়ে ব্যাটসম্যানদের নাভিঃশ্বাস তুলে দিলেন তিনি।

নিজের ৪ ওভারে ৩৪ রান দিয়ে তুলে নিলেন চারটি গুরুত্বপূর্ণ উইকেট। তার শিকারের তালিকায় ছিল রবিন উথাপ্পা, বেন স্টোকস, স্টিভ স্মিথ এবং রিয়ান পরাগ। অথচ প্রথম ওভারে একেবারে নিয়ন্ত্রণ পাচ্ছিলেন। প্রথম পাঁচ বলে দিয়েছিলেন ১৯ রান।

প্রসঙ্গত, স্টোকসকে ফেরাতে উইকেটের পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেন কার্তিক। মাটি থেকে তিন ফুট উঁচুতে ঝাঁপিয়ে পড়ে বল তালুবন্দি করেন। বল হাতে কামিন্সের অসাধারণ পারফরম্যান্সের উপর ভর করে মরণবাঁচন ম্যাচে জিতে প্লে-অফের আশা বাঁচিয়ে রাখল মর্গ্যান বাহিনী।