বিনোদনের শ্রেষ্ঠ মাধ্যম হচ্ছে মৌলভীদের ওয়াজ : জবি উপাচার্য

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.মীজানুর রহমান এসব কথা বলেছেন, ‘গ্রামে ওয়াজ টোয়াজ হতো সেইগুলোতে যেতাম। সবাই এসে বসতো। হুজুররা এসে কথা বলতো। ভালোই লাগতো, খারাপ না। মন টা নরম হতো যে, হুজুররা সুন্দর সুন্দর কথা বলে। এখন ধর্মীয় ওয়াজ মাহফিল গুলো ওয়ান কাইন্ড ওফ কনসার্ট।’

আজ সোমবার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিবেটিং সোসাইটির আন্তঃবিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন তিনি।

উপাচার্য বলেন, ‘কনসার্ট হয় না, লাইভ, এডিটিং, টিভি, মোবাইল এবং ইউটিউব। হুজুররা সব গান গেয়ে ফেলতেছে। পল্লিগীতি, ভাওয়াইয়া গান থেকে শুরু করে সিনেমার গান। হুজুররা গাইতেছে, নাচতেছে, জিকির করতেছে এবং তালেতালে নাচে। বিনোদনের শ্রেষ্ঠ মাধ্যম হচ্ছে মৌলভীদের ওয়াজ।’

মীজানুর রহমান আরো বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা মানে কেবল হিন্দু মুসলিমের সাম্প্রদায়িকতা না। সুন্নিরা কি শিয়াদের মুসলমান মনে করে। ইউটিউবে হুজুরদের ওয়াজ শুনে দেখবেন যে, উনি ছাড়া কেউ মুসলমান না। সবাই কাফের। যারা মোনাজাত করছে তারা কাফের। যারা ওয়াজ করছে তারা কাফের।’

জগন্নাথ ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত ১৫ তম আন্তঃবিভাগ বিতর্ক প্রতিযোগিতায় টিম ইসলামিক স্টাডিজ ডিবেটিং ক্লাব চ্যাম্পিয়ন এবং লোকপ্রশাসন বিভাগ রানার আপ হয়েছে।

সূত্র: কালের কণ্ঠ অনলাইন।