প্রয়োজনে বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করে ভোট : অমিত শাহ

ভুয়া ভোটার নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনে বাংলাদেশ সীমান্ত সিল করে দিয়ে ভোট গ্রহণ করা হবে ভারতে, ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোটের প্রধান অমিত শাহ এমনটাই বলেছেন। শুক্রবার (৬ নভেম্বর) নিউ টাউনে হোটেল ওয়েস্টিনে মালদহ, নদীয়া ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার বিএসএফ কর্তাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা বলেন তিনি।

গত নির্বাচনে বেশ কয়েকটি রাজ্যে নতুন করে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ছিনিয়ে নিয়েছে ভারতের ক্ষমতাসীন দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি)। পশ্চিমবঙ্গে সেটা সম্ভব না হলেও সেখানে লড়াই হয়েছে হাড্ডাহাডি। অল্প ব্যবধানে রাজ্যটিতে জয়লাভ করে মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে থাকা তৃণমূল কংগ্রেস। বিজেপির অভিযোগ, নির্বাচন এলে বাংলাদেশ থেকে হাজার হাজার ভুয়া ভোটার নিয়ে আসে তৃণমূল।

বিজেপির এমন দাবি ‘হাস্যকর’ বলে বরাবরই উড়িয়ে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। তারপরও গতকাল শুক্রবার ভারতের ক্ষমতাসীন দলের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে একই দাবি করা হলো।শুক্রবার মালদহ, নদীয়া ও দক্ষিণ-চব্বিশ পরগনার বিএসএফ (ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী) কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সেখানে তিনি বলেন, বাংলাদেশ থেকে প্রচুর ভুয়া ভোটার আনা হয়। এবার সীমান্তে নজরদারি চালাতে হবে, যাতে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীরা ভোট দিতে না পারে।

তিনি আরো বলেন, এমনভাবে নজরদারি চালাতে হবে যেন একটি মশা বা মাছিও সীমান্ত টপকে না আসতে পারে। এ সময় তিনি প্রয়োজনে সীমান্ত সিল করার নির্দেশনা দেন।এরপর রাজ্য বিজেপির নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করেন অমিত শাহ। সেখানে তিনি বলেন, যে কোনো উপায়ে বাংলাকে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কুশাসন থেকে মুক্ত করতে হবে। এর পরের নির্বাচনে আমরা এই রাজ্যে অন্তত ২০০ আসন চাই। সেই লক্ষ্যে কাজ করতে হবে এখন থেকেই। বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীরা যাতে রাজ্যে ঢুকে ভোট দিতে না পারে, সেদিকে তীক্ষ্ম নজর রাখতে হবে।

সূত্র : আনন্দবাজার, সময় নিউজ।